ডেমন

ডেমন হল একধরণের সুপার ন্যাচরাল এনটিটি। বিভিন্ন ধরণের গল্প-উপন্যাস, জাদুবিদ্যা, মিথোলজি কিংবা লোককথায় ডেমন খুঁজে পাওয়া যায়। এছাড়া পৃথিবীর অনেক ধর্মে ডেমনের উল্লেখ পাওয়া যায়। ডেমন হল খারাপ শক্তি যেটা তার শক্তির মাধ্যমে মানুষকে নিয়ন্ত্রণে আনতে পারে এবং ডেমন নরকে টর্চারার হিসেবে কাজ করে।
ডেমন শব্দটি এসেছে গ্রীক শব্দ “ডেইমন” থেকে। এই শব্দটি মূলত কোনো খারাপ অর্থ বহন করেনা। এই শব্দের অর্থ হল আত্মা বা ঐশ্বরিক শক্তি। প্রাচীন ইস্টার্ন ধর্মগুলো এবং আব্রাহামিক প্রথায় বিশেষ করে প্রাচীন ক্রিশ্চিয়ান ডেমোনোলজিতে ডেমন কে দেখানো হয়েছে ক্ষতিকর শক্তি হিসেবে যে মানুষ কে জোর পূর্বক নিয়ন্ত্রণে নিতে পারে। ডেমোনোলজি অনুসারে একজন জাদুকর ডেমন কে ডাকতে পারে এবং তাকে বশ করতে পারে এবং তাকে দিয়ে কাজ করাতে পারে। খ্রীষ্টান ধর্ম ছাড়াও ইহুদী, হিন্দু এবং ইসলাম ধর্মে ডেমন এর উল্লেখ পাওয়া যায়। ইসলাম ধর্মে ডেমন কে জ্বীন এবং হিন্দু ধর্মে অসুর বা অপশক্তি হিসেবে উল্লেখ পাওয়া যায়।

বিভিন্ন ধর্মে ডেমন

ইহুদী ধর্ম

হিব্রু বাইবেল “তানাখ” এ দুই ধরণের ডেমনের উল্লেখ রয়েছে
• শেইরিম (স্পিরিচুয়াল)
• শেডিম (ফিজিক্যাল)
তানাখ এ শেডিম দুই যায়গায় আর শেইরিম এক যায়গায় উল্লেখ করা হয়েছে।
এছাড়া তালমুদিক ট্রেডিশন এ ডেমন এর উল্লেখ আছে। জেরুজালেমীয় তালমুদ এ ডেমনের তেমন উল্লেখ নেই কিন্তু ব্যাবীলনীয় তালমুদে এর প্রচুর উল্লেখ আছে।

খ্রীষ্টান ধর্ম

বাইবেল এ ডেমনের অনেক উল্লেখ পাওয়া যায়। ওল্ড টেস্টামেন্ট এ ডেমনিক এনটিটিকে “লোমশ ছাগল” এবং “ডেমন” এই দুই শ্রেণীতে ভাগ করা হয়েছে।অন্যদিকে নিউ টেস্টামেন্ট এ ৬৩ বার ডেমনের উল্লেখ রয়েছে।
ক্রিশ্চিয়ান ডেমোনোলজি মতে ডেমন হল দূষিত আত্মা যা সাটান বা শয়তান এর ইচ্ছা আকাঙ্খা বহন করে। এদের ৩ ভাগে ভাগ করা হয়েছে
• খারাপ মানুষের আত্মা যারা মানুষের ক্ষতি করে।
• ফলেন এঞ্জেলস যারা লুসিফার এর পক্ষ নিয়ে যুদ্ধ করে এবং সবথেকে শক্তিশালি এঞ্জেল মাইকেল এর কাছে পরাজিত হয়ে স্বর্গ থেকে বিতাড়িত হয়।
• “নেফিলিম” যারা হাফ মানুষ হাফ এঞ্জেল। (এদের দেহের মৃত্যু ঘটে
নুহ (আঃ) এর মহাপ্লবনে কিন্তু এদের আত্মা টিকে আছে। )

ইসলাম ধর্ম

ইসলাম ধর্মে ডেমন বা জ্বীন কে বিভিন্ন ভাগে ভাগ করা হয় যেমনঃ আমীর, শয়তান, মারীদ, ঘুল, ইফ্রীত ইত্যাদী। এর মধ্যে ইফ্রীত সবথেকে শক্তিশালী।



ডেমনের ক্লাসিফিকেশন

ডেমনের বিভিন্ন রকম ক্লাসিফিকেশন পাওয়া যায় এর মধ্যে কিং সলোমনের ক্ল্যাসিফিকেশন, ল্যান্টার্ন্স অফ লাইট ক্ল্যাসিফিকেশন,মিকাইলিসের ক্ল্যাসিফিকেশন, ব্যারেটস ক্ল্যাসিফিকেশন, স্পাইনাস ক্ল্যাসিফিকেশন, বাইনস্ফেলডস ক্ল্যাসিফিকেশন, কিং জেমস ক্ল্যাসিফিকেশন অন্যতম।

এর মধ্যে ল্যান্টার্ন্স ও বাইনস্ফেলডস ক্ল্যাসিফিকেশন এ ডেমন কে ৭ ভাগে , কিং জেমস ক্ল্যাসিফিকেশন এ ডেমন কে ৪ ভাগে ও মিকাইলিসের ক্ল্যাসিফিকেশন এ ডেমন কে ৩ ভাগে ভাগ করা হয়েছে ।

ডেমন নিয়ে যারা গবেষণা করে তারা কিছু বইপত্রের সাহায্য নেন। এসব বইপত্রের মধ্যে “লেসার কী অফ সলোমন” সবথেকে বেশী ব্যবহৃত হয়।এই বই সহজে পাওয়া যায় না এবং টাকা দিয়ে কিনতে হয়। এই বই এর অরিজিনাল ভার্সন এ কিং সলোমন এর ৭২ টা র‍্যাংকের ডেমনের বিস্তারিত বর্ণনা আছে এবং তাদের ডাকার পদ্ধতি বর্ণনা করা আছে । নেক্সট পর্ব থেকে সেই ৭২ ডেমনের প্রত্যেকের বর্ণনা দেওয়ার চেষ্টা করবো।

সৌজন্যে: মোরশেদ রিফাত ( টম )
Share To:

Cyber Prince

Post A Comment:

0 comments so far,add yours