ডোপামিন ♥♥♥♥

"Love is nothing But some chemical reaction in our brain which control our  heart rate,  respiration rate  and  body's blood pressure and Secretion of Some hormones of our body... "

 এটা আমার কথা,  যা আমার মনে হয় ঠিক! 

এখন কথা হল হরমোন রিলিজ হল আর ভালোবাসা হয়ে গেল ব্যাপার টা এত্তো সোজা?? 
মোটেই না। 

আমাদের মস্তিষ্কের হিপোথ্যালামাস এ অনেক ধরনের হরমোন রিলিজ হয় যা আমাদের রিলিজ হয় আমাদের পার্টিকুলার যেকোনো কাজ এর পর আমরা যে অনুভূতি পাই । 

আর এই হরমোন রিলিজ হবার সাথে স্মৃতি শক্তির বা নিউরন এর একটা কানেকশন আছে,  মানুষ টিভিতে বিভিন্ন গান দেখে বা মুভি দেখে বা জীবনের বিভিন্ন স্টেজ থেকে অভিজ্ঞতাটা অর্জন করে এবং মজা পেতে থাকে৷ 

আচ্ছা মজা পেল বা কান্না পেল এর সাথে প্রেম এর সম্পর্ক কী?

আছে এখানেই আসল টুইস্ট। 

আমাদের নিউরন গুলোর মধ্যে দিয়ে বিভিন্ন ইলেক্ট্রো ক্যামিকাল ডেটা সমূহ বিভিন্ন কাজের জন্য প্যাটার্ন আকারে যায়। 

আর এটাকে বলে সর্ট টার্ম ম্যামরি,  আর যখন বার বার,  বার বার,  একই পথে নিউরন যায় তখন সেটা লং-টার্ম ম্যামরীতে কনভার্ট হয়৷ 

এখন ধরে নিন আমি কাউকে দেখলাম রাস্তায়,  সে ভীষন রকম সুন্দর,  আমি আমার ফ্রেন্ড কে বললাম দেখ মামা মেয়ে টা কি সুন্দর! 

সাথে সাথে  আমার হার্ট রেট উপরে,  রেস্পিরেশন রেট উপরে,  আর এগুলো হয় আমাদের মস্তিষ্কের হিপোথ্যালামাস এ একটা হরমন রিলিজ হয় নাম তার ডোপামিন ♥।

আচ্ছা এখন এটা কি প্রেম??  না এটা একটা ভালো লাগা,  আর হর্মন রিলিজ হবার প্রশান্তি। 

এখন ব্রেইন কিন্তু মনে রেখেছে কোন প্যাটার্ন এ নিউরনের মধ্যে দিয়ে ইলেকট্রো ক্যামিক্যাল পরিচালিত হলে সে এই অনুভূতি পায়। 

এখন ব্রেইন তো হারামি সে বার বার এই অনুভূতি পেতে চায়,  তো সে সে সেই অনুযায়ী মানুষ কে পাঠায় ঐ রাস্তায় যেখানে সেই  মেয়ে আছে 😅।

 কীভাবে পাঠায়? সেই লং-টার্ম ম্যামরী থেকে। আবার মানুষ যায় আবার সেই বুকের মধ্যে ধুক ধুক, ধুক ধুক 😂😂😂। আবার হর্মন রিলিজ আবার সেই অনুভূতি! ♥♥

আর প্রেম হচ্ছে এর সমন্নিত রূপ,  আমাদের,  সুখের, দুঃখ এর অবাক হবার,  কান্নার,  হাসির,  সেক্সুয়াল সেনসিটিভিটি বা প্লেজার, সব কিছুর জন্য দ্বায়ী হিপোথ্যালামাস  এ রিলিজ হতে থাকা ডোপামিন । আবার নেশা যারা করে তাদের মস্তিষ্কেও এই ডোপামিন ই রিলিজ হয়৷ আসলে এটা আমাদের ইমোশন নিয়ন্ত্রণ করে! 

এখন এমন অনেক অনূভুতি একসাথে জড়ো হয়,  যার সাথে সেগুলোর স্মৃতি জড়ো হয়৷ এই যে মস্তিষ্কের প্রশান্তি লাভের আশা সেটার জন্য সে একই কাজ বার বার করতে চায়। আর বার বার করতে গেলে তার তো বাইরের জগৎ এও একটা ইফেক্ট পড়ে তাই না!!

যেমন মেয়ে দেখে ভালো লাগলে বার বার ঔ রাস্তায় যাবে ছেলেটা। আর এটা সবার চোখে পড়বে,  আর মেয়েটার ও যদি ছেলেটাকে দেখে তার একটিভিটি দেখে সেইম রিএকশন হয় সেও ছেলেটার সাথে দেখা করতে চাইবে৷ 

যখন দুজন থাকবে তারা সাথে তাদের মস্তিষ্কের হিপোথ্যালামাস  এ রিলিজ হবে ডোপামিন সহ অনেক হর্মন ।  আর নিউরনের প্যাটার্ন এর দ্বারা বানানো স্মৃতি শক্তি দ্বারা তারা এই অনুভূতি গুলো বার বার পেতে চায় ! 

 সে বাস্তব জীবনেও ওই কাজ করতে যায় যার সমন্বিত রূপ হচ্ছে এই প্রেম বা ভালোবাসা। 

এখন কেউ ব্রেকাপ করলে কষ্ট পায় কিন্তু এজন্য না যে অন্য জন চলে যাচ্ছে,  কষ্ট পায় এজন্য ওই যে প্রশান্তির অনুভূতি  সেটা চলে যাচ্ছে,  আর আমাদের মস্তিষ্ক তো টেপ রেকোর্ডারের মত স্মৃতি প্লেব্যাক করতে পছন্দ করে! 

বার বার মস্তিষ্ক  যখন স্মৃতি প্লে ব্যাক করে যা আমাদের প্রশান্তি পাবার আকাঙ্ক্ষা থেকে সৃষ্টি হয় কষ্ট পাবার নতুন অনুভূতি! 

আবার আমরা বলি সময় গেলে সব ঠিক হয়ে যাবে,  আসলে সময় সব ঠিক করে এমন না,  ব্যাপার হল এই যে মস্তিষ্কের নিউরনের প্যাটার্ন গুলো হয় সে ভুলে যায়,  অথবা তার জায়গায় চালিত হয় নতুন প্যাটার্ন,  নতুন অনুভূতি বা এক কথায় নতুন কোনো মানুষ! 

এই যে ছবি দেখছেন এখানে দেখুন এক মিনিট এর মধ্যে heart rate এর variation এগুলো গতবছর জুলাই মাসের ১৮ তারিখ রাতের।

 তখন কিন্তু এক জায়গায় বসে ছিলাম তাও আমার হলের বেঞ্চে, আর আমার সাথে এমন কিছু ঘটেছিল যার ফলে আমার মস্তিষ্ক আমাকে কিছু স্মৃতি প্লেব্যাক  করে দেখাচ্ছিল এই যা 
 
এসব মেজার করেছিল আমার ব্যান্ড এবনরমাল একটিভিটি এজন্য  ।। 

নরমাল সময় যা থাকে ৮০+-। 

আজব বিষয় গুলো। আজব৷ 

যারা মানুষের স্মৃতি শক্তির ব্যাপার টা বুঝতে পারছেন না বলবেন ওটার উপর আলাদা আর্টিকেল আছে! 

 Credit: #AbhiIDT

Share To:

Advices

Post A Comment:

0 comments so far,add yours